Login

Register

Login

Register

   প্রতি মঙ্গলবার চক্ষু, দন্ত, মেডিসিন, ডায়াবেটিক, গাইনি, চর্ম, হাড়, কিডনি, ক্যান্সার ও অন্যান্য বিশেষজ্ঞ ডাক্তার পরামর্শ ফ্রি !! ৫০% ছাড়ে অনলাইন হেলথ্কেয়ার প্যাকেজ ! এপয়েন্টমেন্ট এর জন্য: 01887045555
Open

23/C, (3rd floor), Zigatola, Dhaka-1209

Hotline: +880 1887045555

ফুসফুস

ফুসফুস

ফুসফুস মানবদেহের একটি অত্যাবশ্যকীয় অঙ্গ। লালচে বাদামি রংয়ের এ অঙ্গটির সাহায্যে শ্বাস-প্রশ্বাস নেয়া হয়। পেটের ওপর বুকজুড়ে হৃৎপি- ডের দুই পাশে ফুসফুসের অবস্থান।কোনো রোগী শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলে এবং তার ফুসফুস থেকে ১ লিটার বা দেড় লিটার পানি বের করে দেয়ার পর আমাদের কাছে চাঞ্চল্যতা সৃষ্টি করলেও প্রকৃতপক্ষে এই পানি কিন্তু ফুসফুস থেকে বের করা হয় না, বের করা এই পানিও ফুসফুসে জমা পানি নয়। তা হলে পানি কোথায় থাকে? ফুসফুসকে যে পাতলা আবরণী বা প্লুরায় ঘিরে রাখে তাতেই জমা হয় পানি, এ রোগটির নাম প্লুরাল ইফিউশন। তাহলে কি ফুসফুসে কখনোই পানি জমে না? হ্যা, ফুসফুসেও পানি জমে তবে সেই রোগটিকে বলে পালমোনারি ইডেমা (Pulmonary Edema) এই পানি কিন্তু এভাবে বের করে আনা সম্ভব নয়।বিভিন্ন কারণে ফুসফুস আবরণীতে পানি জমতে পারে। এসবের মধ্যে আছে ফুসফুসের কিছু নিজস্ব এবং ফুসফুসের সঙ্গে সম্পর্কহীন কারণ। সাধারণত ফুসফুসের টিবি, নিউমোনিয়া, ক্যানসার, ইনফার্কশন এ জাতীয় রোগে প্লুরায় পানি জমতে পারে। ফুসফুসের রোগের বাইরে হার্ট ফেইলিওর, লিভার সিরোসিস, নেফ্রোটিক সিন্ড্রম, কিডনি ফেইলিওর, ম্যালনিউট্রিশন, পেরিকার্ডাইটিস, লিভার অ্যাবসেসÑ এসব রোগেও ফুসফুসের প্লুরায় পানি জমতে পারে।

 

শ্বাসপ্রশ্বাস ছাড়া অন্যান্য কাজ

বায়ু বিনিময় ও হাইড্রজেন আয়ন ঘনত্ব নিয়ন্ত্রণের মত শ্বাসপ্রশ্বাস সংক্রান্ত কাজ ছাড়াও ফুসফুস আরও যেসকল কাজ করে থাকে সেগুলো হলো:

  • ধমনীয়রক্তে ঔষধ হিসাবে ব্যবহৃত ‘প্রানীদেহে কার্যকর সক্রিয় বস্তু’ ও ‘ঔষধ-উপাদানের ঘণত্ব’ প্রভাবিত করে।
  • শিরায়তৈরি হওয়া ছোট রক্ত পিন্ড অপসারন করে।
  • হৃৎপিণ্ডের প্রতিরক্ষার জন্য নরম, ঘাতসহ স্তর হিসাবে ব্যবহৃত হয়, যা প্রায় চারপাশে হতেহৃৎপিণ্ডকে ঘিরে থাকে।

 

 

ফুসফুসের সমস্যা হলে প্রথমে যে লক্ষণটি প্রকাশ পায় তা হলো শ্বাসকষ্ট। অনেকেই প্রাথমিকভাবে বিষয়টিকে প্রাধান্য না দেওয়াই এর প্রভাব বাড়তে থাকে। অনেকেই ভাবেন, বয়স বাড়ার কারণে কোনো কাজে হাঁপিয়ে উঠলে বোধ শ্বাসকষ্ট হয়। তবে বিষয়টি সাধারণ নয়।

 

শ্বাসকষ্টের ইঙ্গিত হতে পারে সিওপিডি, হাঁপানি এবং ফুসফুস ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগের প্রথম লক্ষণ। প্রথমদিকেই যদি শ্বাসকষ্ট হওয়ার কারণ সম্পর্কে আপনি জানতে পারেন, তাহলে ফুসফুসের ক্যান্সার থেকে নিজেকে বাঁচাতে পারবেন।

 

শুধু শ্বাসকষ্ট নয় ফুসফুসে রোগ বাসা বাঁধলে দেখা দেয় আরও কিছু লক্ষণ। যেগুলো আপনার জন্য সতর্কতামূলক হতে পারে। তবে যারা বিষয়গুলো সাধারণ ভেবে ভুল করেন; তাদের জন্য মারাত্মক হতে পারে ফুসফুসের ব্যাধি-

>> নিয়মিত শুকনো কাশি ফুসফুসের রোগের একটি লক্ষণ। যদি ৮ সপ্তাহ টানা কাশি থাকে; তাহলে বুঝতে হবে আপনার ফুসফুসের কার্যক্ষমতা কমেছে। প্রাথমিক এ লক্ষণ আপনাকে ইঙ্গিত দেয়, শ্বাসযন্ত্রের ব্যবস্থায় ত্রুটি ঘটলেই একটানা কাশি হয়।

>> শ্বাসকষ্ট কখনো সাধারণ সমস্যা হতে পারে না। অনেকে ভেবে থাকেন শারীরিক কসরতের কারণে শ্বাসকষ্ট হতে পারে! ধারণাটি ভুল। ফুসফুসে সমস্যা থাকলে আপনি অল্পতেই হাঁপিয়ে উঠতে পারেন। এটিও একটি সতর্কতা লক্ষণ।

 

>> ক্রমাগত যদি আপনার শ্লেষ্মা বা কফ উঠে থাকে; তাহলেও চিন্তার বিষয়। বায়ুপথ যখন সংকুচিত হয়ে আসে; তখন শ্লেষ্মা উৎপাদন বেড়ে যায়। যদি আপনার শ্লেষ্মা উৎপাদন এক মাস বা তারও বেশি সময় ধরে চলমান থাকে; তবে এটি ফুসফুসের রোগকে ইঙ্গিত করে।

>> শ্বাস নেওয়ার সময় যদি বুকের মধ্যে শব্দ করে; তাহলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। ফুসফুসের রোগ হলে এ ধরনের লক্ষণ দেখা দেয়। এর কারণ হলো আপনার ফুসফুসের বায়ুপথ একেবারেই সংকুচিত হয়ে এসেছে।

>> কাশির সঙ্গে রক্ত পড়ার কারণটিও ফুসফুসের রোগের লক্ষণ হিসেবে বিবেচিত। উপরের শ্বাসনালী থেকে রক্ত উঠে থাকে এক্ষেত্রে। এমনটি হলে দ্রুত চিকিৎসকের শরনাপন্ন হতে হবে।

>> দীর্ঘস্থায়ী বুকে ব্যথা অনুভব করলে অনেকে গ্যাস্ট্রিক বলে উড়িয়ে দেয়। বিষয়টি কিন্তু মারাত্মক রোগের লক্ষণ হতে পারে। এক মাস বা তার বেশি সময় অবধি বুকে ব্যথা স্থায়ী হলে চিন্তার বিষয়। ফুসফুসে রোগ বাসা বাঁধলে শ্বাস নেওয়া বা কাশির সময় বুকে জোরে ব্যথা লাগতে পারে। এটিও একটি সতর্কতা।

 

উপরোক্ত এসব লক্ষণ দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যাওয়া উচিত। ফুসফুসের স্বাস্থ্য পরীক্ষার মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন, আপনার ফুসফুস কেমন আছে।

যদি ফুসফুসের কোনো রোগে আপনি ভুগেও থাকেন, প্রাথমিক পরীক্ষার পর দ্রুত সেরে উঠতে পারবেন। পাশাপাশি ফুসফুসের যত্নে পুষ্টিকর খাবার ও শরীরচর্চা করা উচিত।

মহামারি করোনার এ সময় সুস্থ থাকতে ফুসফুসের বাড়তি যত্ন নেওয়ার বিকল্প নেই। এজন্য জীবনব্যবস্থায় পরিবর্তন আনা জরুরি।

Hi, How Can We Help You?
0
    0
    Your Cart
    Your cart is emptyReturn to Shop
    Need Help? Chat with us