প্রতি মঙ্গলবার চক্ষু, দন্ত, মেডিসিন, গাইনি, চর্ম, হাড়, ও অন্যান্য বিশেষজ্ঞ ডাক্তার পরামর্শ ফ্রি !! ৫০% ছাড়ে অনলাইন হেলথ্কেয়ার প্যাকেজ ! এপয়েন্টমেন্ট : 01887045555
Open

23/C, (3rd floor), Zigatola, Dhaka-1209

Hotline: +880 1887045555

Heart

হৃদপিণ্ড সম্পর্কে জানুন

(Heart) হৃদপিণ্ড ছোট আকারের হয়। একটি মুষ্টি মত যা দেখতে ছোট এবং ভীতর থেকে ফাঁপা হয়। আপনার হৃদপিণ্ডের পেশীগুলির রক্তের নিজস্ব সরবরাহ প্রয়োজন কারণ আপনার শরীরের বাকি অংশের মতো স্বাস্থ্যকর থাকার জন্য অক্সিজেন এবং অন্যান্য পুষ্টির দরকার।

মানুষের শরীরের দেহের সমস্ত কোষ এবং অঙ্গগুলি গুরুত্বপূর্ণ । তাদের মধ্যে একটা ছোট অংশ হলো হৃদপিণ্ড যার স্বাস্থ্যের উপর নির্ভর করে আছে আমাদের প্রাণ।

এই কারণে, আপনার হৃদয়, আপনার করোনারি ধমনীর মাধ্যমে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তকে তার নিজস্ব পেশীতে পাম্প করে। ব্যাক্তির শ্বাস যতক্ষণ  চলে, ততক্ষণ হৃদ স্পন্দন ও চলতে থাকে। যেই মুহুর্তে ব্যাক্তির শ্বাস  প্রশ্বাস থেমে যায়,  ততক্ষণাৎ হৃদ স্পন্দনও থেমে যায় এবং ব্যাক্তিটি মারা যান। হৃদয়ের রক্তের ধমনীয় ক্রিয়া বন্ধ হয়ে যায় এবং রক্ত প্রবাহিত হয় না যার ফলে হার্ট অ্যাটাকের মতো সমস্যা দেখা দেয়।

 

প্রতি  ৩৫ সেকেন্ডে একজন হার্ট অ্যাটাকের কারণে মারা যায়। ভারতে প্রতি বছর বেশীরভাগ মানুষ হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত হন। চলুন, আজকের লেখনীতে আমরা হৃদয়ঘাত কি সম্বন্ধীয় কিছু তথ্য জেনে নি।

Heart

  • হৃদয়ঘাত কি? (What is Heart Attack Meaning)
  • হৃদয়ঘাতের কারণ কি? (What are the causes of Heart Attack)
  • হৃদয়ঘাতের লক্ষণ কি? (What are the Symptoms of Heart Attack)
  • হৃদয়ঘাতের চিকিৎসা কি? (What are the Treatments of Heart Attack)
  • হৃদয়ঘাতের সময় কি খাওয়া উচিত কি এড়ানো উচিত। (What Food to Eat and Avoid during Heart Attack)

হৃদয়ঘাত কি? (What is Heart Attack Meaning in Bengali)

হৃদয়ঘাত একটি হৃদরোগ । যা কোন প্রতিবন্ধকতার কারণে রক্ত পাওয়া যায় না এবং রক্ত, রক্তনালিগুলির মাধ্যমে ধমনীতে পৌঁছায় না। ধমনীতে অপর্যাপ্ত রক্ত সরবরাহের কারণে হৃদপিণ্ডের কিছু অংশ কাজ করতে বাধা পায় এবং হৃদয়ঘাতের সমস্যা দেখা দেয়ে। হৃদয়ঘাত খুবই মারাত্মক এতে মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হয়।

হৃদয়ঘাতের কারণ কি? (What are the causes of Heart Attack)

  • যদি কোন ব্যাক্তির এক থেকে অধিক করোনারি ধমনী খারাপ হয় তখন সেই ব্যাক্তি হৃদয়ঘাতে আক্রান্ত হতে পারেন। ইংরাজী তে একে Coronary Arteries Diseases বলা হয়।
  • কোলেস্টেরল ও অন্যান্য পদার্থ হৃদয় কে প্রভাবিত করে।এবং যেখানে প্লেগ ফেটে যায়, সেখানে রক্ত জমাট বেঁধে যায়। রক্ত জমাটের কারণেও হৃদয়ঘাত হয়।
  • হৃদপিণ্ডের ধমনীর ফেটে যাওয়ার কারণেও হৃদয়ঘাত হয়।
  • করোনারি আর্টারি স্প্যাম রক্তের পেশীগুলিকে প্রভাবিত করে। এ কারণে রক্তের স্রাব কোষ থেকে হৃদয় পর্যন্ত পৌঁছতে পারে না। তাই হৃদয়ঘাতের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

হৃদয়ঘাতের লক্ষণ কি

Heart

  • বুক জ্বালা করা।
  • মাথা ঘোরানো। (ভার্টিগো মাথা ঘোরার কারণ-পড়ুন)
  • শ্বাস কষ্ট ।
  • পেটে ব্যাথা।
  • ক্লান্ত হয়ে পড়া। (ক্লান্তির কারণ কি? ক্লান্তি কেন হয়-পড়ুন)
  • বুকে চাপ পড়া।
  • গলায় প্রচন্ড ব্যাথা।
  • স্ট্রেস অথবা ভয় পাওয়া।

হৃদয়ঘাতের চিকিৎসা কি? (What are the Treatments of Heart Attack)

হৃদয়ঘাতের চিকিৎসা, চিকিৎসক রোগির লক্ষণের ভিত্তি তে নির্ধারণ করেন।

  • যদি ব্যাক্তির হৃদয়ঘাতের লক্ষণ ১২ ঘন্টা টেকে তাহলে চিকিৎসক (পি.সি.আই) করার পরামর্শ দেন।
  • যদি ব্যাক্তির হৃদয় কম প্রভাবিত হয় ও লক্ষণ ও কম দেখা যায় তাহলে চিকিৎসক রোগিকে ঔষধ দেন।
  • যদি লক্ষণ ১২ ঘন্টার ও অধিক সময় অবধি টেকে তাহলে চিকিৎসক বাইপাস সার্জারি করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।
  • হৃদয়ঘাতের ঔষধ অ্যান্টি-প্লেটলেট, অ্যান্টিবগুলাংট্স, হেরপরিনের ইত্যাদি লক্ষণের উপর নিরধারণ করে দেওয়া হয়।

হৃদয়ঘাতের সময় কি খাওয়া উচিত কি এড়ানো উচিত। (What Food to Eat and Avoid during Heart Attack).

  • খাওয়া উচিত- মাছ, পনীর, সয়াবিন, সতেজ সব্জী ও ফল, কমলা লেবু, বেদানা, জাম, কাটবাদাম, বাদাম, জলপাই তেল, সব্জীর তেল, ক্যানলা তেল, গমের আটা, গ্রিন-টি, ইত্যাদি  সেবন করা উচিত।
  • খাওয়া উচিত না- ভাজা শাক সব্জী, ভাজা মাছ মাংস, সফ্ট ড্রিংক, নোনতা খাবার, মিষ্টি, সাদা ভাত ইত্যাদি সেবন ক্ষতিকারক ।

যদি আপনি হৃদয়ঘাতের সম্বন্ধে আরও কিছু তথ্য জানতে চান বা চিকিৎসা করাতে চান তাহলে ততক্ষণাৎ কার্ডিওলকজিস্টে (Cardiologist) এর সাথে সম্পর্ক করুন।

হার্টের চিকিৎসার জন্য ঢাকার সেরা কার্ডিওলজি ডাক্তারের তালিকা

ডাঃ এম এন হাদি আজহারে

এমবিবিএস (এসএসএমসি) বিসিএস (স্বাস্থ্য)

ডি-কার্ড (N.I.C.V.D) CCD (BIRDEM-DLP, ENG)

CMU, DMU (CIMUD) PGT (মেডিসিন-বিএসএমএমইউ)

এমডি ড. আসাদুল মিল্লাত

এমবিবিএস, ডি-কার্ড (কার্ডিওলজি)

সহযোগী অধ্যাপক &

কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান ড

মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকা।

ডাঃ কে এ আজম

এমবিবিএস (ডিএমসি), বিসিএস (স্বাস্থ্য), এমপিএইচ (ডিইউ)

PGT (মেডিসিন এবং কার্ডিওলজি)

সি ইউ (বি ইউ সোসাইটি)

পরামর্শদাতা – মেডিসিন এবং কার্ডিওলজি

অমল কুমার ঘোষ

এমবিবিএস, (আরএমসি), সিসিডি (ডায়াবেটিস-বারডেম)

ডি-কার্ড (বিএসএমএমইউ), কার্ডিওলজিতে উচ্চ প্রশিক্ষিত, ভারত

কনসালটেন্ট কার্ডিওলজিস্ট

বাংলাদেশ শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয় (এক্স-পিজি হাসপাতাল)

কার্ডিওলজি, মেডিসিন, ডায়াবেটিস বিশেষজ্ঞ

Hi, How Can We Help You?
0
    0
    Your Cart
    Your cart is emptyReturn to Shop
    Need Help? Chat with us